শিরোনাম
মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের ভূমিকা বাঞ্ছারামপুরে জনি চেয়ারম্যান এর বিকল্প নেই জনপ্রিয়তার শীর্ষে জনি চেয়ারম্যান বাঞ্ছারামপুরে ডাকাত আতঙ্ক , উদাসীন প্রশাসন টাঙ্গাইল সাহিত্য সংসদের উদ্যোগে কবি এ.এম.ইকবালকে কবি ও শহীদ বুদ্ধিজীবী নিত্যানন্দ পাল স্মৃতি পুরস্কার প্রদান দেশবাসী উন্নয়ন ও অগ্রগতির স্বার্থে নৌকায় ভোট দিয়েছে- ক্যাপ্টেন তাজ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-০৬ আসনে নৌকার মাঝি ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ইউএনও এবং ওসি বদলীর নির্দেশ দিয়েছে ইসি বাঞ্ছারামপুরে মাটি চুরির অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা দিলো ইউপি সদস্যের স্বামী আখাউড়ায় বাজারে পেঁয়াজের কড়া ঝাঁজ!
সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১২:২৩ অপরাহ্ন

বাঞ্ছারামপুরে সরকারি হালট দখল; প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অভিযোগ

বাঞ্ছারামপুর প্রতিনিধি / ২১১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩১ মার্চ, ২০২৩
বাঞ্ছারামপুরে সরকারি হালট দখল; প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অভিযোগ বাঞ্ছারামপুর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে সরকারি হালট দখল করে কয়েকজন প্রভাবশালী তাদের  বাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করায় রাস্তা সরু হওয়ায় পাকা করণের কাজ করতে পারছেনা ঠিকাদার। রাস্তা পাকা করণের কাজ বন্ধ থাকায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে এলাকার মানুষ।  এ ঘটনায় এলকাবাসী প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার দরিয়াদৌলত ইউনিয়নের কদমতলী ৫নং ওয়ার্ডের মুসলেম মিয়ার বাড়ির মোড় হতে মোঃ খোকা মিয়ার বাড়ির মোড় হয়ে কদমতলী সরকারি প্রার্থমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত এল জিইডির রাস্তা পাকা করনের কাজ শুরু হয়েছে।১কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে ১হাজার মিটার দৈঘ্যের রাস্তার কাজটি বাস্তবায়ন করছেন এলজিইডির ঠিকাদার রহমান এন্ড সন্স  নামের একটি প্রতিষ্ঠান। রাস্তাটির দক্ষিণ পাড়ার বাবুল মিয়া,মোহন মিয়া,বিল্লাল মিয়া, খোকা মিয়া, বাতেন মিয়াসহ কয়েকজন প্রভাবশালী রাস্তা দখল করে বাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ ও টিনের বেড়া দিয়ে রাস্তা দখল করে রেখেছে। এতে করে রাস্তা সরু হয়ে গেছে। কয়েক দফায় সীমানা প্রাচীর ও টিনের বেড়া সরানোর কথা বললেও তা সরিয়ে না নেওয়ায় ঠিকাদার বাধ্য হয়ে কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়,কদমতলী দক্ষিন পাড়ায় গিয়ে দেখা গেছে মুসলেম মিয়ার বাড়ির মোড় হতে মোঃ খোকা মিয়ার বাড়ির মোড় হয়ে কদমতলী সরকারি প্রার্থমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত রাস্তার নির্মাণ কাজ চলছে। দক্ষিন পাড়ায় রাস্তার বাবুল মিয়া রাস্তা দখল করে পাকা সীমানা দখল করে রেখেছে। পাশের বাড়ির মোহন মিয়া,বিল্লাল মিয়া, খোকা মিয়া, বাতেন মিয়া রাস্তা দখল করে টিনের বেড়া দিয়ে রেখেছেন। সীমানা প্রাচীর ও টিনের বেড়ার কারনে রাস্তা সংকোচিত হয়ে যাওয়ার কারনে রাস্তার কাজ বন্ধ রেখেছেন ঠিকাদার।  কদমতলী গ্রামের নাজির হোসেন জানান, এ রাস্তাটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দু‘শ বছরের পুরোনো এই গ্রাম হলেও এই রাস্তাটি পাকা হয়নি। রাস্তা পাকা করনের কাজ শুরু হলেও কয়েকজন ব্যক্তি রাস্তা দখল করে রাখার কারনে রাস্তার কাজ বন্ধ রয়েছে। আমরা গ্রামবাসী উপজেলা নির্বাহ কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি রাস্তা দখল মুক্ত করতে। দরিয়াদৌলত ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য মহসিন মিয়া জানান, আমাদের দক্ষিন পাড়ার মানুষ এই রাস্তা ব্যবহার করে উপজেলা সদর সহ বিভিন্ন জায়গায় যাতায়ত করে। তাদের একমাত্র সড়ক হচ্ছে এটি। সামান্য বৃষ্টি হলেই কাদা হয়ে যায়। যার কারনে এই রাস্তাদিয়ে চলাচলে মানুষদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যা পাকা করনের কাজ শুরু হয়েছিলো কয়েকজন ব্যক্তির কারনে কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি মোঃ মাসুম জানান, কদমতলী দক্ষিন পাড়ার কয়েকজন ব্যক্তি রাস্তার উপর পাকা সীমানা প্রাচীর ও টিনের বেড়া দিয়ে দখল করে রেখেছে। এতে করে রাস্তা সরু হয়ে গেছে। এজন্য রাস্তার কাজ করতে আমাদের সমস্যা হচ্ছে।   দরিয়াদৌলত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান উজ্জল জানান, দক্ষিণ পাড়ার এই রাস্তাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ গ্রামের জন্য। এই রাস্তা দিয়ে শিক্ষার্থীরা স্কুলে যাতায়ত করে কিছু ব্যক্তি রাস্তার জায়গা দখল করে রাখায় ঠিকাদার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। ইউএনও স্যারের সাথে কথা বলেছি স্যার এসে জায়গাটা দেখে ব্যবস্থা নিবে বলেছে। উপজেলা প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, কদমতলী রাস্তার অনেক জায়গা সরু অবস্থায় রয়েছে । অনেকে জায়গা ছাড়তে চাচ্ছেন না। খালের মধ্যে রাস্তা করতে বলছে। একারনে সাময়িক ভাবে কাজ বন্ধ রয়েছে।  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একি মিত্র চাকমা জানান, রাস্তা দখলের বিষয়ে একটি অভিযোগ  পেয়েছি। এই বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে সরকারি হালট দখল করে কয়েকজন প্রভাবশালী তাদের  বাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করায় রাস্তা সরু হওয়ায় পাকা করণের কাজ করতে পারছেনা ঠিকাদার। রাস্তা পাকা করণের কাজ বন্ধ থাকায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে এলাকার মানুষ।  এ ঘটনায় এলকাবাসী প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার দরিয়াদৌলত ইউনিয়নের কদমতলী ৫নং ওয়ার্ডের মুসলেম মিয়ার বাড়ির মোড় হতে মোঃ খোকা মিয়ার বাড়ির মোড় হয়ে কদমতলী সরকারি প্রার্থমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত এল জিইডির রাস্তা পাকা করনের কাজ শুরু হয়েছে।১কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে ১হাজার মিটার দৈঘ্যের রাস্তার কাজটি বাস্তবায়ন করছেন এলজিইডির ঠিকাদার রহমান এন্ড সন্স  নামের একটি প্রতিষ্ঠান। রাস্তাটির দক্ষিণ পাড়ার বাবুল মিয়া,মোহন মিয়া,বিল্লাল মিয়া, খোকা মিয়া, বাতেন মিয়াসহ কয়েকজন প্রভাবশালী রাস্তা দখল করে বাড়ির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ ও টিনের বেড়া দিয়ে রাস্তা দখল করে রেখেছে। এতে করে রাস্তা সরু হয়ে গেছে। কয়েক দফায় সীমানা প্রাচীর ও টিনের বেড়া সরানোর কথা বললেও তা সরিয়ে না নেওয়ায় ঠিকাদার বাধ্য হয়ে কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়,কদমতলী দক্ষিন পাড়ায় গিয়ে দেখা গেছে মুসলেম মিয়ার বাড়ির মোড় হতে মোঃ খোকা মিয়ার বাড়ির মোড় হয়ে কদমতলী সরকারি প্রার্থমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত রাস্তার নির্মাণ কাজ চলছে। দক্ষিন পাড়ায় রাস্তার বাবুল মিয়া রাস্তা দখল করে পাকা সীমানা দখল করে রেখেছে। পাশের বাড়ির মোহন মিয়া,বিল্লাল মিয়া, খোকা মিয়া, বাতেন মিয়া রাস্তা দখল করে টিনের বেড়া দিয়ে রেখেছেন। সীমানা প্রাচীর ও টিনের বেড়ার কারনে রাস্তা সংকোচিত হয়ে যাওয়ার কারনে রাস্তার কাজ বন্ধ রেখেছেন ঠিকাদার। 

কদমতলী গ্রামের নাজির হোসেন জানান, এ রাস্তাটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দু‘শ বছরের পুরোনো এই গ্রাম হলেও এই রাস্তাটি পাকা হয়নি। রাস্তা পাকা করনের কাজ শুরু হলেও কয়েকজন ব্যক্তি রাস্তা দখল করে রাখার কারনে রাস্তার কাজ বন্ধ রয়েছে। আমরা গ্রামবাসী উপজেলা নির্বাহ কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি রাস্তা দখল মুক্ত করতে।

দরিয়াদৌলত ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য মহসিন মিয়া জানান, আমাদের দক্ষিন পাড়ার মানুষ এই রাস্তা ব্যবহার করে উপজেলা সদর সহ বিভিন্ন জায়গায় যাতায়ত করে। তাদের একমাত্র সড়ক হচ্ছে এটি। সামান্য বৃষ্টি হলেই কাদা হয়ে যায়। যার কারনে এই রাস্তাদিয়ে চলাচলে মানুষদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যা পাকা করনের কাজ শুরু হয়েছিলো কয়েকজন ব্যক্তির কারনে কাজ বন্ধ হয়ে গেছে।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি মোঃ মাসুম জানান, কদমতলী দক্ষিন পাড়ার কয়েকজন ব্যক্তি রাস্তার উপর পাকা সীমানা প্রাচীর ও টিনের বেড়া দিয়ে দখল করে রেখেছে। এতে করে রাস্তা সরু হয়ে গেছে। এজন্য রাস্তার কাজ করতে আমাদের সমস্যা হচ্ছে।  

দরিয়াদৌলত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান উজ্জল জানান, দক্ষিণ পাড়ার এই রাস্তাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ গ্রামের জন্য। এই রাস্তা দিয়ে শিক্ষার্থীরা স্কুলে যাতায়ত করে কিছু ব্যক্তি রাস্তার জায়গা দখল করে রাখায় ঠিকাদার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। ইউএনও স্যারের সাথে কথা বলেছি স্যার এসে জায়গাটা দেখে ব্যবস্থা নিবে বলেছে।

উপজেলা প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, কদমতলী রাস্তার অনেক জায়গা সরু অবস্থায় রয়েছে । অনেকে জায়গা ছাড়তে চাচ্ছেন না। খালের মধ্যে রাস্তা করতে বলছে। একারনে সাময়িক ভাবে কাজ বন্ধ রয়েছে। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একি মিত্র চাকমা জানান, রাস্তা দখলের বিষয়ে একটি অভিযোগ  পেয়েছি। এই বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে। 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
error: Content is protected !!
error: Content is protected !!